রাজধানীতে ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে শোভাযাত্রা

0
80

মাকসুদ খান : আঞ্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভান্ডারীয়ার উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ঢাকায় জশনে জুলুস ইসলামি শোভাযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাইজভান্ডার দরবার শরীফের গদিনসীন পীর কেবলা হযরত মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী আল্-হাসানী আল্-হুসাইনী।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট অব বাংলাদেশ মিলনায়তন প্রাঙ্গণ থেকে জশনে জুলুস শোভাযাত্রা বের হয়ে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে বিপুল সংখ্যক মানুষ নেন। এ সময় ফ্রান্সে ইসলাম ধর্মের প্রবক্তা মহানবী (সা.)-র অবমাননার তীব্র নিন্দা জানান তারা। সেই সঙ্গে দেন শান্তি ও সৌহার্দ্যের বার্তা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। কোনো ধর্মের অনুসারীরাই তাদের ধর্মীয় ব্যক্তিত্বের অবমাননা মেনে নিতে পারে না। তাই মুসলিম হিসেবে মহানবীর (সা.) অবমাননা আমরা কীভাবে মেনে নেব?

এ সময় অন্য ধর্মবিশ্বাসের ওপর আঘাত না করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন, এসব অপশক্তির বিরুদ্ধে দেশে দেশে শান্তিকামী মানুষের জাগরণ ঘটাতে হবে।

গদিনসীন পীর কেবলা হযরত মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী তার বক্তবে মুসলিম বিশ্বের ঐক্য কামনা করেন। এসময় তিনি , মহানবী (সা.) এর জীবন ব্যবস্থা উম্মাতে মুহাম্মদের (সা.) জন্য অবশ্যই অনুকরণীয় এবং পালনীয় বলে মন্তব্য করেন। পরে দেশ ও জাতির পার্থিব উন্নতি ও কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী।

অন্যদিকে মুগদা থানা ইমাম ওলামা পরিষদ মুগদা হায়দার আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি কমলাপুর হয়ে মুগদা হাসপাতালের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় বক্তারা সরকারকে ফ্রান্সের সাথে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার আহ্বান জানান। একইসাথে ফ্রান্সের সব পণ্য বয়কটের আহ্বান জানান তারা।

এছাড়াও জুমার নামাজের পর রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে বিক্ষোভ করেন লক্ষ লক্ষ ধর্মপ্রাণ সাধারণ মুসল্লিরা।