ট্রাম্পের নির্বাচনী কর্মকর্তা বরখাস্ত

0
10

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এমন অভিযোগের বিরোধিতা করায় নির্বাচনী শীর্ষ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জানিয়েছেন, নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে ‘অত্যন্ত ভুল’ মন্তব্য করার জন্য তিনি সাইবার সিকিউরিটি এবং ইনফ্রাসট্রাকচার সিকিউরিটি এজেন্সি (সিসা) প্রধান ক্রিস ক্রেবসকে বরখাস্ত করেছেন। রয়টার্স, বিবিসি।

মার্কিন নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন ট্রাম্প। ভোট গণনায় ব্যাপক কারচুপি হয়েছে বলে অভিযোগ তার। তবে কোনো প্রমাণাদি উত্থাপন করেননি তিনি। এবারের নির্বাচনকে মার্কিন ইতিহাসে সবচেয়ে সুরক্ষিত নির্বাচন বলে আখ্যা দিয়েছেন নির্বাচনী কর্মকর্তারা। তবে মার্কিন নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে বলে অব্যাহতভাবে অভিযোগ করে আসছেন ট্রাম্প।

এ অভিযোগের বিরোধিতা করে হোয়াইট হাউসের বিরাগভাজন হন ক্রিস ক্রেবস। এরআগে সিআইএস’-এর সহকারী পরিচালক ব্রায়ান ওয়ারে গত সপ্তাহে পদত্যাগ করেছেন। হোয়াইট হাউস তাকে পদত্যাগপত্র জমা দিতে বলেছিল। বরখাস্তের ঘোষণার পর ক্রেবসের মধ্যে কোনো অনুশোচনা দেখা যায়নি।

ক্রেবস টুইটারে বলছেন, ‘নির্বাচনী পদ্ধতি জালিয়াতির যে অভিযোগ তোলা হয়েছে, ৫৯ জন নির্বাচনী নিরাপত্তা কর্মকর্তা একমত হয়েছেন যে, আমাদের জানা মতে কোন ঘটনাতেই এরকম অভিযোগের ভিত্তি নেই এবং প্রযুক্তিগতভাবেও সেটা সম্ভব নয়।’

উল্লেখ্য, ৩ নভেম্বর মার্কিন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ৭ নভেম্বর জো বাইডেনকে বিজয়ী ঘোষণা করে মার্কিন গণমাধ্যম। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২৯০ ইলেকটোরাল কলেজভোট পেয়ে এগিয়ে বাইডেন। ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি। ফল ঘোষণা বাকি ১৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট।